দেশের এত উন্নয়নের পরও কেন মানুষ আ.লীগের বিপক্ষে ভোট দেবে

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেছেন, বিএনপি নির্বাচন কমিশন নিয়ে আবারো প্রশ্ন তুলেছে। আইনের ভিত্তিতেই নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রক্রিয়া শুরু করা হয়। সার্চ কমিটির কাছে অন্যান্য রাজনৈতিক দল নাম জমা দিলেও বিএনপি নাম জমা দেয়নি।

তিনি বলেন, আইনের ভিত্তিতে গঠিত নির্বাচন কমিশনের আওতায় আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সেই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ আবারো সরকার গঠন করবে। বিএনপি নির্বাচনে আসলে ভালো, না আসলে ক্ষতি নেই। কারণ ব্যাপক উন্নয়নের মাধ্যমে দেশের মানুষের মধ্যে আওয়ামী লীগ ব্যাপক জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। দেশের এত উন্নয়নের পরও কেন মানুষ আওয়ামী লীগের বিপক্ষে ভোট দেবেন বলেও তিনি প্রশ্ন রাখেন।

শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় নওগাঁ জিলা স্কুল মাঠে নওগাঁ সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন এসব কথা বলেছেন।

খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুযোগ্য নেতৃত্বের কারণে এখন বাংলাদেশের আপামর মানুষ চরম আরাম আয়েশে দিনযাপন করছেন। আজ থেকে ১৫ বছর আগেও এ দেশের মানুষ একবেলা পেট ভরে ভাত খেতে পারতেন না। এক সময় সারের জন্য এদেশের মানুষকে প্রাণ দিতে হলেও বর্তমান সরকার কৃষি ও কৃষকদের উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রেখে চলেছে। কৃষকদের বিনামূল্যে সার, বীজ ও কীটনাশক সরবরাহ অব্যাহত রেখেছে। এরই ফলশ্রুতিতেই বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ঘটেছে। এ অর্জনের কৃতিত্ব বর্তমান সরকারের।

খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, আমেরিকার তৎকালীন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি কিসিঞ্জার বাংলাদেশকে তলাবিহীন ঝুড়ি আখ্যায়িত করেছিলেন। বর্তমান সরকারের অভূতপূর্ব অগ্রযাত্রার কারণে সেই হেনরি কিসিঞ্জার খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জনের ফলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ফাওয়ের পক্ষ থেকে পুরস্কৃত করেছেন।

এর আগে নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক এমপি আব্দুল মালেক সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। নওগাঁ সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহবুবুল হক কমলের সভাপতিত্বে সম্মেলনে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি প্রধান আলোচক ছিলেন।

সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন- কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক, শহিদুজ্জামান সরকার এমপি, ব্যারিস্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন এমপি, ছলিম উদ্দিন তরফদার এমপি, আনোয়ার হোসেন হেলাল এমপি, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের স্বাস্থ্য ও জনসেবা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানাসহ জেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।

পরে দ্বিতীয় অধিবেশনে মাহবুবুল হক কমলকে সভাপতি ও রেজাউল করিমকে সাধারণ সম্পাদক করে আংশিক কমিটি ঘোষণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post ব্যবসায়ীর কাছে চাঁদা দাবি, জামায়াত নেতাসহ গ্রেফতার ২
Next post সরকার দেশকে নীরব দুর্ভিক্ষের দিকে ঠেলে দিচ্ছে