সুপ্রিম কোর্ট বার নির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের আভাস: বিএনপির সাথে নেই জামায়াত!

এক দিন পরেই ভোট সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির (সুপ্রিম কোর্ট বার)। শেষ মুহূর্তে প্রার্থীরা ছুটছেন ভোটারের দ্বারে দ্বারে। চেম্বার থেকে চেম্বারে, আদালতপাড়ায় এমাথা থেকে ওমাথা। প্রার্থীদের সমর্থক বাহিনীও বসে নেই।

পরশু মঙ্গলবার ১৫ ও পরদিন বুধবার ১৬ মার্চ অনুষ্ঠিত হবে ভোট গ্রহণ। নির্বাচন নিয়ে চলছে নানা হিসাব-নিকাশ। নানা রকম সমীকরণ। ২০২২-২৩ মেয়াদের জন্য সমিতির সভাপতি-সম্পাদকসহ ১৪ পদে ৩৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এর মধ্যে আওয়ামী লীগ সমর্থিত সাদা প্যানেলের ১৪ জন, বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেলের ১৪ জন এবং পাঁচজন স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনী লড়াইয়ে মাঠে আছেন। আভাস পাওয়া গেছে, এবার হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে যাচ্ছে। ভোটযুদ্ধে সাদা ও নীল প্যানেল কেউ কারও থেকে কম নয়।

আওয়ামী লীগ সমর্থক আইনজীবীদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু আওয়ামী আইনজীবী পরিষদ (সাদা প্যানেল) থেকে এ বছর সভাপতি পদে সাবেক অতিরিক্ত অ্যাটর্নি জেনারেল জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মো. মোমতাজ উদ্দিন ফকির এবং সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট মো. আবদুন নূর দুলালকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে বিএনপি সমর্থক আইনজীবীদের সংগঠন জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম (নীল প্যানেল) এ নির্বাচনে সভাপতি পদে সমিতির সাবেক সম্পাদক জ্যেষ্ঠ আইনজীবী ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল এবং সম্পাদক পদে বর্তমান সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজলকে মনোনয়ন দিয়েছে।

এদিকে এবার নির্বাচনে বিএনপিপন্থিদের সঙ্গে ঐক্যবদ্ধ হতে পারেনি জামায়ত সমর্থক আইনজীবীরা। প্যানেলে কাক্সিক্ষত পদে মনোনয়ন না পেয়ে জামায়ত সমর্থক আইনজীবীদের সংগঠন বাংলাদেশ ল’ইয়ার্স কাউন্সিল সহসভাপতি একটি ও সম্পাদক একটি পদে পৃথক প্রার্থী দিয়েছে।

এদিকে সভাপতি পদে ব্যারিস্টার তানিয়া আমীরের নাম তালিকায় থাকলেও তিনি সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের নির্ধারিত সময়ের পর তিনি সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেওয়ায় ব্যালট পেপারে তার নাম থাকবে বলেও জানা গেছে।

জয়ের বিষয়ে আশাবাদী দুই প্যানেলই। জানতে চাইলে সাদা প্যানেলের সম্পাদক প্রার্থী আবদুন নূর দুলাল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, আমরা ভোটের মাঠে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। ইনশা আল্লাহ আমরাই বিজয়ী হব।

অন্যদিকে নীল প্যানেলের সম্পাদক প্রার্থী ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, করোনার মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আইনজীবীদের উন্নয়নে কাজ করেছি। পেশার মান উন্নয়নে অক্লান্ত পরিশ্রম করেছি। এবার আমরাই বিজয়ী হব ইনশা আল্লাহ। সাদা প্যানেলের অন্য প্রার্থীরা হলেন- সহসভাপতি দুই পদে মো. শহীদুল ইসলাম, মোহাম্মদ হোসাইন, কোষাধ্যক্ষ পদে ড. মো. ইকবাল করিম, সহ-সম্পাদক দুই পদে এ বি এম হামিদুল মিসবাহ, মো. হারুন অর রশিদ। এ ছাড়া সদস্য পদে ফাতেমা বেগম, হাসান তারেক, মুনমুন নাহার, শফিক রায়হান শাওন, শাহাদাত হোসাইন (রাজিব), সুব্রত কুমার কুন্ডু প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নীল প্যানেলের অন্য প্রার্থীরা হলেন- সহ-সভাপতি দুই পদে মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, আসরারুল হক, কোষাধ্যক্ষ মো. কামাল হোসেন, সহ-সম্পাদক দুই পদে মাহফুজ বিন ইউসুফ, মাহবুবুর রহমান খান। এ ছাড়া সদস্য পদে গোলাম আক্তার জাকির, মঞ্জুরুল আলম সুজন, ব্যারিস্টার মাহাদিন চৌধুরী, ফাতিমা আক্তার, ব্যারিস্টার ফয়সাল দস্তগীর, মোস্তফা কামাল বাচ্চু, আনোয়ারুল ইসলাম বাঁধন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এর আগে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০২২-২০২৩ সালের নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়। সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সম্পাদক ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল সমিতির গঠনতন্ত্রের ১৪ (১) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করেন। তফসিল অনুযায়ী আগামী ১৫ ও ১৬ মার্চ, ২০২২ (মঙ্গলবার ও বুধবার) সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির ২০২২-২৩ কার্যকরী কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সিনিয়র আইনজীবী এ ওয়াই মশিউজ্জামানকে প্রধান করে সাত সদস্যবিশিষ্ট নির্বাচনী সাব-কমিটি (নির্বাচন কমিশন) গঠন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post বিয়ের প্রলোভন শারীরিক সম্পর্ক, প্রেমিকার অনশন
Next post জামাইকে হত্যা করে লাশ বাড়ি পাঠানোর অভিযোগ শ্বশুরের বিরুদ্ধে