‘আপনারা সব লুট করছেন’

সরকারের দুর্নীতির কারণেই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে বলে অভিযোগ করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে জাতীয়তাবাদী কৃষক দলের এক বিক্ষোভ সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব এই অভিযোগ করেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, সারা দেশ চিৎকার করছে, সারাদেশের মানুষ বলছে যে, জিনিসপত্রের দাম বেড়ে গেছে-আমি আর পারছি না। তাতে কিছু যায় আসে না, না ঠিক আছে। উন্নয়ন তো হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী বললেন কি?

রাশিয়া ও ইউক্রেনের যুদ্ধ এটা আমাদেরকে দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। অথচ ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধের আগের থেকেই তো দাম বাড়ছে। চালের দাম, তেলের দাম তো বাড়তেই আছে, পেঁয়াজের দাম বাড়তেই আছে। কারণ একটাই আপনারা সব লুট করছেন, চুরি করছেন, ডাকাতি করছেন।

আর যারা দাম বাড়াচ্ছে তারা সব আওয়ামী লীগের সদস্য, আওয়ামী লীগের লোক।

টিসিবির ট্রাকের পেছনে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়ানো সাধারণ মানুষের চরম দুরাবস্থার কথা তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তারা বলছে, আমি যখন সয়াবিন তেল কিনতে পারি না, আমি যখন চাল কিনতে পারি না, আমি যখন চিনি কিনতে পারি না, লবন কিনতে পারি না, পেঁয়াজ কিনতে পারি না।

বাসায় ফিরে গিয়ে আমার বাচ্চাগুলোর মুখে কি দেবো সেই চিন্তায় যখন পাগল হয়ে যাই তখন এই আপনাদের পদ্মাসেতু, উড়াল সেতু আর উন্নয়ন দেখে কি কোনো লাভ আছে? এটাই হচ্ছে সাধারণ মানুষের মনের কথা।

আজকে প্রত্যেকটি মূল্য বৃদ্ধিতে নিম্ন আয়ের মানুষ, মধ্য আয়ের মানুষ তারা আজ অসহায় হয়ে পড়েছে। এই যে করুন অবস্থা সাধারণ মানুষের এই সরকারের কিচ্ছু গায়ে লাগে না।

তাদের মন্ত্রীরা সুন্দর সুন্দর কাপড় গায়ে দিয়ে চমৎকার চমৎকার জায়গায় এদিকে ফুল ওদিকে ফুল নিয়ে বসে তারা বক্তৃতা দেয়, বিবৃতি দেয়। কী বলে? আরে দাম তো একটু সারা বিশ্বেই বাড়ছে, সেই সঙ্গে আমাদের ক্রয় ক্ষমতা বেড়ে গেছে।

কৃষক দলের সভাপতি হাসান জাফির তুহিনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শহীদুল ইসলাম বাবুল ও প্রচার সম্পাদক শামসুর রহমান শামস এর পরিচালনায় সমাবেশে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, কৃষক দলের নাসির হায়দার, মামুনুর রশীদ খান, এসএম ফয়সাল, আনম খলিলুর রহমান, ওমর ফারুক শাফিন, সৈয়দ অলিউল্লাহ সিদ্দিকী, টিএস আইয়ুব, ফজলে হুদা বাবুল, শাহ আবদুল্লাহ আল বাকী, শাহ মো. মনিরুর রহমান, মাহমুদা হাবিবা, মনিরুল ইসলাম রয়েল, ইউসুফ আলী মোল্লা, মো. ইশতিয়াক আহমেদ নাসির, সাখাওয়াত হোসেন নান্নু, আসজাদুল আরিশ ডল, শফিকুর রহমান মিঠু প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

উৎসঃ mzamin

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post ‘আমরা প্রস্তুত!’
Next post স্বামী বিদেশে, প্রেমের ফাঁদে পড়ে সর্বনাশ!