অবশেষে রাশিয়া স্বীকার করল ইউক্রেনের সেই দাবি

ইউক্রেনের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল, পেশাদার সৈন্যদের পাশাপাশি অপেশাদার সৈন্যদেরও যুদ্ধ করতে পাঠিয়েছে রাশিয়া।

রাশিয়ায় ১৮-২৭ বছর বয়সী সকল পুরুষকে বাধ্যতামূলকভাবে সেনাবাহিনীতে নাম লেখাতে হয়।

এই সময়ের মধ্যে যারা সেনা জীবনকে পেশা হিসেবে বেঁছে নিতে চায় তাদের সঙ্গে চুক্তি করা হয়।

আর যুদ্ধক্ষেত্রে শুধুমাত্র চুক্তিবদ্ধ পেশাদার সেনাদের পাঠানোর আইন রয়েছে রাশিয়ায়।

কিন্তু এই আইন ভঙ্গ করে কম বয়সী অপেশাদার সেনাদের ইউক্রেনে যুদ্ধ করতে পাঠিয়েছে রাশিয়া।

বিষয়টি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন অস্বীকার করেছিলেন।

তবে বুধবার বিষয়টি স্বীকার করেছে রাশিয়া। দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, অপেশাদার কিছু সেনাদের আটক করেছে ইউক্রেন। যারা যুদ্ধ সরঞ্জাম ও রশদ আদান-প্রদান কাজে নিযুক্ত ছিল।

অপেশাদার সেনাদের পাঠানোর বিষয়টি স্বীকার করে রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, দুর্ভাগ্যবশত, আমরা খুঁজে পেয়েছি অপেশাদের সৈন্যদের কিছু ইউনিট ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযানে অংশ নিয়েছে। বর্তমানে অপেশাদার সকল সেনাদের ইউক্রেন থেকে নিয়ে আসা হয়েছে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে ভবিষ্যতে যেন এমনটি না হয় সেদিকটিতে তারা খেয়াল রাখবেন।

এদিকে অভিযোগ ওঠেছে অপেশাদার অনেক সৈন্যদের জোর করে চুক্তিবদ্ধ করিয়েছে রাশিয়া। এমনকি অনেকে নিজেদের অজান্তে চুক্তি করেছে। ফলে এখন তাদের ইউক্রেনে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

সূত্র: বিবিসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র!
Next post যুক্তরাষ্ট্রের পর জার্মানিও হতাশ করল ইউক্রেনকে