দ্রব্যমূল্য বাড়ানোর পেছনে বিএনপির হাত! ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ আ’লীগের

দেশবিরোধীরা কারসাজি করে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে দেশে সংকট তৈরির অপচেষ্টা করছে। বিএনপি যোগসাজশ করে এই অপচেষ্টা করছে অভিযোগ তুলে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুবউল আলম হানিফ কোথাও কোনো দ্রব্যের অতিরিক্ত মূল্য নিলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

বুধবার দুপুরে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ অভিযোগ করেন।

জিয়াউর রহমান পাকিস্তানি এজেন্ট ছিলেন দাবি করে হানিফ বলেন, জিয়াউর রহমান নামে মুক্তিযোদ্ধা, মনে ছিলেন পাকিস্তানি। তিনি কোথাও যুদ্ধ করেছেন বলে প্রমাণ নেই। সিলেট অঞ্চলে যুদ্ধ করার যে ইতিহাস বিএনপি বলে, তার প্রমাণ নেই। বরং বিভিন্ন দালিলিক তথ্যে প্রমাণ মিলেছে জিয়াউর রহমান ছিলেন পাকিস্তানের এজেন্ট।

জিয়াউর রহমান ছিলেন রাজাকারের দোসর। সে কারণে ক্ষমতায় গিয়ে রাজাকার ও স্বাধীনতাবিরোধীদের পুনর্বাসন করেছিলেন। শীর্ষ রাজাকারদের বানিয়েছিলেন এমপি-মন্ত্রী।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলামকে পৃথিবীর সেরা মিথ্যাবাদী উল্লেখ করে তিনি বলেন, মির্জা ফখরুল ইসলাম পৃথিবীর সব মিথ্যাচারকে ছাড়িয়ে গিয়ে ইতিহাসে রেকর্ড গড়েছেন। যার ভেতরে কোনো মানবতা নেই তিনি কীভাবে মানবতার মা হন? বিএনপির আমলে ২৬ হাজার নেতাকর্মীকে হত্যাসহ নানাভাবে নির্যাতন চালিয়েছেন। তিনি মানবতার মা হতে পারে না। তিনি খুনির মা হতে পারেন। অথচ মির্জা ফখরুল ইসলাম তাকে মানবতার মা উপাধি দিয়েছেন।

তৃণমূল সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন। তিনি বলেন, দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছে আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীরাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ অনেক তৃণমূল নেতাকর্মী খেয়ে না খেয়ে দলকে টিকিয়ে রেখেছেন। তারা দলকে আঁকড়ে ধরে আছে বলে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থেকেছে।

তিনি আরও বলেন, দলের জন্য শীর্ষ সারির নেতাদের চেয়ে বহুগুণ বেশি অবদান রয়েছে তৃণমূল নেতাদের। শীর্ষ নেতারা লোভনীয় পদ-পদবি ও এমপি-মন্ত্রী হওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ করেন। কিন্তু কোনো লাভের পদ না পেয়েও নিঃস্বার্থভাবে দলের জন্য কাজ করেন তৃণমূলের নেতাকর্মীরা। এমনকি তারা দলের জন্য ও শেখ হাসিনার জন্য প্রাণ দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকেন।

সাংগঠনিক কার্যক্রমে আরও গতিশীলতা আনতে এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রস্তুতি হিসেবে তৃণমূল প্রতিনিধি সভার আয়োজন করেছে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ।

এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও ছিলেন- আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল, ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, অর্থ ও পরিকল্পনা সম্পাদক ওয়াসিকা আয়েশা খান এমপি, উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আমিনুল ইসলাম।

জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় উপস্থিত ছিলেন- জেলা আওয়ামী লীগের নেতা ও জেলার চার আসন এবং সংরক্ষিত আসনের সংসদ সদস্যরা।

উৎসঃ যুগান্তর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post ইউক্রেন প্রেসিডেন্টের নরম সুর, যুদ্ধ কি থেমে যাবে?
Next post পশ্চিমা দেশগুলোর বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা দিতে যাচ্ছে রাশিয়া