‘ঘুম ভাঙে বোমার শব্দে, বাঁচার আশা নেই’

আজ ১৩তম দিন ধরে চলছে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের। রাশিয়ার আগ্রাসনে ইউক্রেনে হাজার হাজার মানুষ ঘরছাড়া। তবে সব থেকে বিপাকে পড়েছেন ইউক্রেনে পড়তে যাওয়া বিভিন্ন দেশের ছাত্রছাত্রীরা।

ইউক্রেনে আটকে পড়া এক ভারতীয় শিক্ষার্থী ভিপিন যাদব জানান, সাধারণত তাদের ঘুম ভাঙত ঘড়ির শব্দে। আর এখন ঘুম ভাঙে বোমা, বিমান হামলা ও গোলার শব্দ শোনে। খবর বিবিসির।

সোমবার এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুদ্ধের কারণে ভিপিন ও তার বিদেশি সহপাঠীরা বাংকারে লুকিয়ে আছেন ইউক্রেনের উত্তরাঞ্চলীয় শহর সুমিতে।

ভিপিন বলেন, চার থেকে পাঁচ দিন তিনি কোনো খাবার পাননি। তিনি শুধু প্রোটিন পাউডার খেয়ে বাঁচেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকাকালে স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে তিনি নিয়ম মেনে ব্যায়াম করতেন। তখন এই প্রোটিন পাউডারও তার ব্যায়ামসংশ্লিষ্ট খাদ্যতালিকায় ছিল। যে খাদ্যাভ্যাস তাকে যুদ্ধদিনে বাঁচতে সহায়তা করছে।

ভিপিন বলেন, তার নিজের ও সহপাঠীদের পানি শেষ হয়ে গেছে। এখন পানি জোগাড়ের একটাই উপায় আছে বাংকারের বাইরে গিয়ে তুষার গলিয়ে নিয়ে আসা।

সুমিতে আটকে থাকা আরেক ভারতীয় মেডিকেল শিক্ষার্থী কৃষ্ণনুন্নি বিবিসিকে বলেন, তারা ইউক্রেন ত্যাগ করার জন্য মরিয়া হয়ে আছেন। আটকেপড়া শিক্ষার্থীদের একটি দল উদ্ধারকারী একটি বাসে করে রওনা দিয়েছিলেন। কিন্তু যাত্রার শুরুতে প্রচণ্ড বিস্ফোরণের শব্দ শোনা যায়। তখন তাদের আবার আশ্রয়স্থলে ফিরে যেতে বলা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post ‘আই হ্যাব টু বি এ বিসিএস ক্যাডার’—সাদিয়ার লাশের পাশে চিরকুট
Next post মেয়েকে স্কুলে রেখে এসে মায়ের আত্মহত্যা, পড়ার টেবিলে মিলল চিরকুট