ঘুস না পেয়ে মনগড়া প্রতিবেদন দেওয়ার অভিযোগ তহশিলদারের বিরুদ্ধে

ঘুস না দেওয়ায় আদালতে মনগড়া প্রতিবেদন দাখিলের অভিযোগ উঠেছে ভূমি অফিসের এক উপ-সহকারী কর্মকর্তার (তহশিলদার) বিরুদ্ধে।

লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়নের কামানখোলা এলাকার প্রবাসী ইসমাইল হোসেনের স্ত্রী লাকি বেগম এ অভিযোগ করেন।

তিনি বুধবার (২ মার্চ) এ বিষয়ে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) কাছে লিখিত অভিযোগ দেন। বিষয়টি তদন্ত করতে উপজেলা সহকারী কমিশনারকে (ভূমি) দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

যার বিরুদ্ধে অভিযোগ- তার নাম মো. ইসমাইল হোসেন। তিনি সদর উপজেলার দালাল বাজার ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা।

অভিযোগে বলা হয়, প্রায় ৪০ বছর আগে পশ্চিম লক্ষ্মীপুর গ্রামে লাকির স্বামী ইসমাইল ও শ্বশুর সাড়ে ৯ শতাংশ জমি কেনেন। সেখানে একটি টিনের ঘর করে বসবাস করে আসছেন তারা। পুরনো ঘরটি জরাজীর্ণ হয়ে পড়ায় তারা পাকা ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেয়। এতে লাকির চাচাশ্বশুর সৈয়দ আহমদ জমির মালিকানা দাবি করে আদালতে একটি মামলা করেন। মামলাটি তদন্তের জন্য ইউনিয়ন তহশিলদারকে দায়িত্ব দেন আদালত। এরপর তহশিলদার ইসমাইল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে লাকির কাছে ৫০ হাজার টাকা ঘুস দাবি করেন। লাকি তাকে দেন ২০ হাজার টাকা। বাকি টাকা না দেওয়ায় আহমদের কাছ থেকে টাকা নিয়ে তহশিলদার আদালতে মনগড়া প্রতিবেদন দেন।

লাকি বেগম বলেন, তদন্ত প্রতিবেদন আমাদের পক্ষে দেওয়ার কথা বলে তহশিলদার ইসমাইল ৫০ হাজার টাকা ঘুস চান। পরে নিরুপায় হয়ে ২০ হাজার টাকা দিয়েছি। দাবির পুরো টাকা না পেয়ে তিনি আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রতিবেদন দিয়েছেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত মো. ইসমাইল হোসেন বলেন, আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ দেওয়ার বিষয়টি শুনেছি।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) অমিত রায় বলেন, অভিযোগটি এখনো আমি হাতে পাইনি। পেলে তদন্ত করে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post জাতিসংঘের প্রস্তাবে বাংলাদেশের ভোট না দেওয়া সংবিধান পরিপন্থি
Next post অপারেশনের পর ছয়দিনেও জ্ঞান ফেরেনি রোগীর, ছেলের দাবি ভুল চিকিৎসা