রাশিয়াকে আটকানোর উপায় তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ! হুঁশিয়ারি বাইডেনের

ইউক্রেনে রুশ আগ্রাসনের পর থেকেই তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের সম্ভাবনা মাথাচাড়া দিচ্ছিল। এবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের গলাতেও শোনা গেল সেই সুর। এখন রাশিয়াকে থামানোর হাতিয়ার তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বলেই মনে করছেন তিনি। তবে এই চরম পরিণতি এড়াতে রাশিয়ার বিরুদ্ধে কড়া নিষেধাজ্ঞা চাপানোর পক্ষেই সওয়াল করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

শনিবার জো বাইডেন বলেন, দু’টি বিকল্প রয়েছে আমাদের সামনে। এক, রাশিয়ার সাথে সরাসরি যুদ্ধে জড়িয়ে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ বাঁধানো। অথবা রাশিয়াকে উচিত শিক্ষা দিতে নিষেধাজ্ঞা চাপানো। যাতে বাকিদের কাছে সেটা উদাহরণ হয়ে থাকে। বাকিরা বুঝতে পারে আন্তর্জাতিক নিয়ম লঙ্ঘন করলে কী ভয়ঙ্কর পরিণতি হতে পারে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরো বলেন, রাশিয়ার উপর চাপানো নিষেধাজ্ঞা এখনো পর্যন্ত ইতিহাসের সবচেয়ে কঠোর নিষেধাজ্ঞা। অর্থনৈতিক এবং রাজনৈতিক নিষেধাজ্ঞার মুখে পড়তে হয়েছে রাশিয়াকে। আগ্রাসনেক স্বল্প ও দীর্ঘ মেয়াদী মূল্য চোকাতে হবে মস্কোকে।

শনিবারই যুক্তরাষ্ট্রের যুদ্ধবিদ্ধস্ত ইউক্রেনের জন্য ৩৫০ মিলিয়ন ডলার অর্থ সাহায্যের ঘোষণা করা হয়েছে। ইউক্রেনকে সবরকমভাবে সাহায্যের আশ্বাসও দেয়া হয়েছে।

এদিকে মার্কিন বিদেশ সচিব অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন টুইট করলেন রাশিয়ার সাধারণ মানুষের উদ্দেশে। জানালেন এই যুদ্ধ একেবারেই অকারণ। লেখেন, সম্পূর্ণ সুরক্ষা ও সম্মানের সাথে বেঁচে থাকার অধিকার আপনাদের যেমন রয়েছে, অন্য সকলেরও রয়েছে। কেউই আপনাদের বিপদে ফেলতে চাইছে না। ইউক্রেনে থাকা আপনাদের প্রতিবেশী, বন্ধু ও পরিবারের সাথে এই অকারণ যুদ্ধের কোনো প্রয়োজন নেই আপনাদের। ইউক্রেনের মানুষও আপনাদের মতোই শান্তিতে থাকতে চান।

তবে কোনোরকম চাপের সামনেই মাথা নোয়াতে রাজি নন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তিনি যুদ্ধ চালিয়ে যেতে মরিয়া। সবমিলিয়ে ধীরে ধীরে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধের দিকে এগিয়ে চলেছে বিশ্ব, দাবি ওয়াকিবহাল মহলের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post কমিশন নয়, বিএনপির মাথাব্যথা নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে: মির্জা ফখরুল
Next post পার্কে বসে ককটেল বানাচ্ছেন ইউক্রেনের নারীরা