পার্কে বসে ককটেল বানাচ্ছেন ইউক্রেনের নারীরা

ইংরেজির শিক্ষক এরিনা। কাজ শেষে একটি নাচের ক্লাস ও পার্টির পরিকল্পনা করেছিলেন তিনি। কিন্তু সেই পরিকল্পনা আর বাস্তবে রূপ পায়নি।

ওইদিনই রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তার সেনাদের ইউক্রেনে হামলার নির্দেশ দেন। ফলে সেই নাচের ক্লাস ও পার্টি আর করা হয়নি এরিনার। তবে সেই পরিকল্পনার তিন দিন পর তিনি এখন যা করছেন তাতে চমকে যাবেন অনেকেই।

বিবিসি জানিয়েছে, ইংরেজির এই শিক্ষিক এখন একটি পার্কে মলটভ ককটেল (পেট্রোল বোমা) তৈরি করছেন। আরও বহু নারীর সঙ্গে ঘাসের ওপর কুঁকড়ে থেকে ককটেল বানিয়ে যাচ্ছেন এরিনা। এমন দৃশ্য ইউরোপের অধিকাংশ মানুষের কাছেই অকল্পনীয়।

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের দক্ষিণপূর্বাঞ্চলীয় শহর দিনিপ্রোতে এরিনারা এখন রুশ সেনাদের অগ্রসর হওয়ার বিরুদ্ধে আত্মরক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

এরিনা বলেন, ‌কেউ ভাবেনি আমরা এভাবে দিন কাটাব। মনে হচ্ছে এখন এই কাজটি করাই একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ। কথাগুলো যখন বলছিলেন, এই শিক্ষকের মুখ ও চুল পলিস্টাইরিনের সাদা ধুলোয় মেখে ছিল।

তিনি বলেন, এটা বেশ ভয়ঙ্কর। সত্যিই বুঝতে পারছি না আমরা কি করছি। আমাদের কিছু করা দরকার।

এরিনার কয়েক মিটার দূরে থাকা এলেনা ও ইউলিয়া নামের আরও দুই নারী জানান, তারা তাদের সন্তানদের দাদা-দাদির কাছে রেখে আসবেন এবং এই অস্ত্র তৈরিতে সাহায্য করবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post রাজনীতির ঊর্ধ্বে দেশ, অস্ত্রহাতে জেলেনস্কির ‘শত্রু’
Next post সিইসি সরকারের নতুন প্রজেক্ট, নতুন কৌশল: প্রিন্স