দেশের মানুষের জীবনযাত্রার মানের প্রকৃত চিত্র দৃশ্যমান: নজরুল ইসলাম খান

টিসিবির পণ্য কিনতে সমাজের সব শ্রেণির মানুষই এখন লাইনে দাঁড়াচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। তিনি বলেছেন, এটাতে দেশের মানুষের জীবনযাত্রার মানের প্রকৃত চিত্র দৃশ্যমান।

গতকাল শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে রাজধানীর মতিঝিলে এনপিপি চেয়ারম্যানের অস্থায়ী কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

পিলখানায় নিহত শহীদ সেনা কর্মকর্তাদের স্মরণে ২০ দলীয় জোট শরিক ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) উদ্যোগে এই অনুষ্ঠান হয়।

২০০৯ সালে সংঘটিত পিলখানা ট্র্র্যাজেডির প্রসঙ্গ টেনে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘যে সরকারের আমলে এই ঘটনা ঘটেছে দায় সেই সরকারের ওপরই বর্তায়। পিলখানা ট্র্যাজেডিতে যত সামরিক কর্মকর্তা নিহত হয়েছে ৯ মাসের মুক্তিযুদ্ধেও এত কর্মকর্তা নিহত হয়নি। ওই ঘটনার তদন্তে সামরিক-বেসামরিক কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু কোনোটিরই তদন্ত প্রতিবেদন এখনো প্রকাশ করা হয়নি।’

তিনি বলেন, ‘ওই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ বিচার আমরা পাইনি। বহুজন বিচারের আওতার বাইরে রয়ে গেছে। যে সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত নয় সেই সরকার জনগণের আকাঙ্ক্ষা পূরণে আগ্রহী হবে- এটা ভাবা যায় না।’

নজরুল ইসলাম বলেন, ‘বিডিআর বিদ্রোহের ঘটনার পেছনে সত্যিকার অর্থে কারা ছিল, কেন ওই ঘটনা ঘটেছিল অর্থাৎ ওই ঘটনার প্রকৃত রহস্য উদঘাটন হওয়া দরকার। দেশে জনগণের ভোটে কখনো গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠিত হলে উপযুক্ত তদন্তপূর্বক ওই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ বিচার যাতে হয় আমাদের সেই আহ্বান থাকবে।’

২০ দলীয় জোটের এই সমন্বয়ক বলেন, ‘মানুষ আজ দারুণ কষ্টে আছে। একজন মন্ত্রী পর্যন্ত বলেছেন, ভালো পোশাক পরা লোকও টিসিবির লাইনে দাঁড়াচ্ছে। বাস্তবতা হচ্ছে, টিসিবির পণ্য কিনতে এখন সমাজের সব শ্রেণির মানুষই লাইন দিচ্ছে। এটাতে দেশের মানুষের জীবনযাত্রার প্রকৃত চিত্র দৃশ্যমান। হালাল উপার্জন করে এখন এই দেশে ন্যূনতম মৌলিক চাহিদা পূরণ করে জীবন ধারণ করা সম্ভব নয়। তাই সমস্যা সমাধানে সরকার পরিবর্তন দরকার। প্রয়োজন জনগণের সরকার, যারা একযোগে দেশ ও দেশের জনগণের জন্য কাজ করবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Previous post বিডিআর বিদ্রোহ দমনের জন্য সেনাবাহিনীকে পাঠানো হয়নি রাজনৈতিক নির্দেশে
Next post জেলেনস্কির ‘বীরত্ব-সাহসিকতা’র প্রশংসায় বরিস জনসন